কক্সবাজারের ১০১ শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

0
103
ইয়াবা। প্রতীকী ছবি

দীর্ঘ ১১ মাস পর টেকনাফের বহুল আলোচিত ইয়াবা ও অস্ত্র মামলায় আত্মসমর্পণকারী ১০১ জন শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে আদালতে পৃথক (ইয়াবা ও অস্ত্র) অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ। আজ সোমবার দুপুরে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। অভিযুক্ত ব্যক্তিরা সবাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন টেকনাফের বিতর্কিত সাবেক সাংসদ আবদুর রহমান বদির চার ভাই ও ১২ আত্মীয়সহ ১৬ জন।

২০১৯ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি টেকনাফ পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের হাতে সাড়ে তিন লাখ ইয়াবা ও ৩০টি আগ্নেয়াস্ত্র তুলে দিয়ে আত্মসমর্পণ করেন শীর্ষ ১০২ জন ইয়াবা ব্যবসায়ী। অনুষ্ঠানে পুলিশের মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীও উপস্থিত ছিলেন। আত্মসমর্পণকারী রাসেল নামের একজন কারাবন্দী অবস্থায় মারা গেছেন।

যেদিন ইয়াবা ব্যবসায়ীরা আত্মসমর্পণ করেন, সেদিনই টেকনাফ মডেল থানায় অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মাদক ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা করেন একই থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) শরীফ ইবনে আলম।

আদালতে অভিযোগপত্র দাখিলের সত্যতা নিশ্চিত করে মামলার দুটোর তদন্তকারী কর্মকর্তা ও টেকনাফ মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) এ বি এম এস দোহা প্রথম আলোকে বলেন, আত্মসমর্পণকৃত ১০২ জন ইয়াবা ব্যবসায়ীর সবাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী। এর মধ্যে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোহাম্মদ রাসেল নামের এক আত্মসমর্পণকারীর মৃত্যু হয়। এ কারণে তাঁকে মামলা দুটো থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। অপর ১০১ জন মাদক ও অস্ত্র ব্যবসার সঙ্গে জড়িত প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাই অভিযুক্ত ১০১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে (২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬(১) এর ১০(গ)৪০/৪১ এবং ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনে) পৃথক অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সবাই কক্সবাজার কারাগারে আছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে