ট্রাম্প-বাইডেনের জয় নিয়ে কী ভাবছেন মার্কিন জনগণ

0
92

পরাজয় স্বীকার করতে ট্রাম্পের অস্বীকৃতি সত্ত্বেও প্রায় ৮০ শতাংশ আমেরিকান মনে করেন বাইডেনই হোয়াইট হাউসের দৌড়ে জয়ী হয়েছেন। এদের মধ্যে অর্ধেকের বেশি আবার রিপাবলিকান ভোটার।

৩ নভেম্বর প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে যে যা-ই বলুক, ডেমোক্র্যাটরা এবারের নির্বাচনে জয়ী হয়েছে বলে মনে করেন তারা। রয়টার্স/ইপসোসের এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে।

পুনর্নির্বাচনের লড়াইয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হেরে যান প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের কাছে। জয়ের জন্য ২৭০টি ইলেকটেরাল ভোটের প্রয়োজন হলেও এরই মধ্যে ২৭৯টি ভোট নিশ্চিত করে ফেলেছেন বাইডেন। সব রাজ্যের ভোট গণনা শেষ হলে এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

অন্যদিকে ট্রাম্প পেয়েছেন ২১৪টি ইলেকটোরাল ভোট। পপুলার ভোটের ক্ষেত্রে বাইডেন পেয়েছেন ৭ কোটি ৬৩ লাখ ভোট। এটি মোট ভোটের ৫০ দশমিক ৭ শতাংশ। অন্যদিকে ট্রাম্প পেয়েছেন ৭ কোটি ১৬ লাখ ভোট। এটি মোট ভোটের ৪৭ দশমিক ৬ শতাংশ।

নির্বাচনের পর দিন থেকেই ট্রাম্প দাবি করে আসছেন, তিনিই জয়ী হয়েছেন। কিন্তু কারচুপি ও ভোট চুরি করে তার জয় ছিনিয়ে নেয়া হচ্ছে। ভোটের এক সপ্তাহ পার হওয়ার পরও পরাজয় স্বীকার করতে প্রস্তুত নয় ট্রাম্পশিবির। বরং তারা আইনি লড়াই শুরু করেছে।

যদিও ভোটে অনিয়ম-কারচুপির শক্তিশালী কোনো প্রমাণ ট্রাম্পশিবির দিতে পারেনি। এ অবস্থায় শনিবার বিকাল থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত জাতীয়পর্যায়ে একটি জরিপ পরিচালনা করে রয়টার্স/ইপসোস।

এতে অংশ নেয়া ৭৯ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক আমেরিকান বিশ্বাস করেন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বাইডেন জয়ী হয়েছেন। ১৩ শতাংশ আমেরিকান মনে করেন নির্বাচনের এখনও চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হয়নি। মাত্র ৩ শতাংশ মনে করেন ট্রাম্পই জয়ী হয়েছেন। আর ৫ শতাংশ মানুষ মনে করেন তারা কিছু জানেন না।

নির্বাচনের ফলাফলের ইস্যুতে জরিপটিতে দলীয়পর্যায়েও দেখা গেছে বিভক্তি। প্রতি ১০ জন রিপাবলিকানের ছয়জন মনে করেন বাইডেন জয়ী। অন্যদিকে প্রায় সব ডেমোক্র্যাটই মনে করেন বাইডেন জিতেছেন।

ট্রাম্প এখনও নির্বাচনের ফলাফলের স্বীকৃতি দেননি। এমনকি ভোট গণনা শেষ হওয়ার আগেই তিনি একতরফা নিজেকে বিজয়ী ঘোষণা করেন। তবে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ ও তার মন্ত্রিসভার কেউ কেউ তার পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন।

মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার ভোটে প্রচুর অনিয়মের কেন্দ্রীয় তদন্তের অনুমতি দিয়েছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও মঙ্গলবার বলেছেন, দ্বিতীয় ট্রাম্প প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠুভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের বিষয়টি দেখতে পাচ্ছেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে