ঢালিউডে মা টাইটেল নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র

0
50

ফাত্তাহ তানভীর রানা: মা আমাদের জীবনে এক অকৃত্রিম বন্ধুর নাম। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। মা আমাদের জীবনে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন বারতা নিয়ে বিভিন্ন রূপে আসে।আমরা সেলুলয়েড পর্দায় মাকে বিভিন্ন রূপে দেখি।বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকারেরা মাকে বিভিন্ন চলচ্চিত্রে সাবলীলভাবে উপস্থাপন করেছেন। মা’র চরিত্রে অভিনয় করে অনেকে প্রশংসা ও পুরস্কার দুই পেয়েছেন। মা কেন্দ্রীক সিনেমাগুলো অধিকাংশই দর্শক নন্দিত ও প্রশংশিত হয়েছে। আবার অনেক সিনেমার নামও মা কেন্দ্রীক রয়েছে।

মা কেন্দ্রীক সিনেমাগুলিতে দর্শক মায়ের অভিনয় দেখে বিগলিত হয়ে যায়। অনেক গল্পে মা ছেলেকে বাচানোর জন্য খুনী হয়ে যান। আবার সন্তানের জন্য খুনও করেন। কিছু মা সন্তানের জন্য জীবনও দিয়ে দিতে দ্বিধা করেন না। সিনেমার কাহিনীতে মা’দের অবদানে দর্শক আবেগে বিগলিত হয়ে যান। যা অনেক সময় পারিবারিক ঘটনাতেও প্রভাব ফেলে।

২০২১ সালের মে মাসের দ্বিতীয় রোববার বিশ্ব মা দিবস। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতোই বাংলাদেশেও বিশ্ব মা দিবস পালন করা হয়।  স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশে মা-কে নিয়ে, মা-কে গল্পে প্রাধান্য দিয়ে অনেক চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছে। স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরে মা-কে আশ্রয় করে নির্মাণ করা সিনেমার সংখ্যা পঞ্চাশটির কম হবে না। আজ মা টাইটেল নিয়ে নির্মিত দেশীয় অনেক চলচ্চিত্রের ভীড়ে পনেরটি চলচ্চিত্রের গল্প করব খুব সংক্ষিপ্ত পরিসরে। যে সিনেমাগুলি বাংলাদেশের স্বাধীনতা উত্তর পঞ্চাশ বছরে বিভিন্ন সময়ে নির্মিত হয়েছে।

ছোট মাঃ তমিজ উদ্দিন রিজভী পরিচালিত ছোট মা ছবিতে অভিনয় করেছেন বুলবুল আহমেদ, কবরী, ফারুক, অঞ্জনা, এটিএম শামসুজ্জামান, রোজী, মোস্তফা প্রমুখ।ছোট মা চরিত্রে কবরীর প্রাণবন্ত অভিনয় আজও ভোলার নয়।

বড় মাঃ দেলোয়ার হোসেন দুলাল পরিচালিত বড় মা ছবিতে অভিনয় করেন সোহেল রানা, রোজিনা, সুচন্দা, শওকত আকবর, মতি, মাস্টার শামীম, এটিএম শামসুজ্জামান, মিজু আহমেদ প্রমুখ। নিঃসন্তান মা সুচন্দার দেবরের ছেলেকে আপন করে নেওয়ার মাধ্যমে মুভিটির কাহিনী এগিয়ে যায়। সন্তানের মা না হয়েও বড় মা এবং ছোট মা রোজিনার সাথে মা মরা ছেলে মাস্টার শামীমের টানাপোড়েনই গল্পের উপজীব্য বিষয়।

মাঃ সত্তরের দশকের শেষভাগে মুক্তিপ্রাপ্ত বাবুল চৌধুরী পরিচালিত মা ছবিটি নিয়ে নায়ক সোহেল রানা বলেন, তাঁর অভিনয় জীবনের অন্যতম সেরা ছবি মা’। ‘মা’ ছবিতে মায়ের প্রতি ছেলে সোহেল রানার ভালোবাসাও চমৎকারভাবে চিত্রায়িত হয়েছে।

মায়ের দোয়াঃ আলমগীর, শাবানা, ইমরান, অরুণা বিশ্বাস, মিজু আহমেদ, আনোয়ার হোসেন অভিনীত, আলমগীর কুমকুম পরিচালিত মুভিটি সেই সময় প্রচন্ড সাড়া ফেলে। সিনেমাটিতে মায়ের চরিত্রে রূপদান করেন আয়েশা আখতার। একজন মায়ের অনুগত সন্তান যে সব কাজে মাকে স্মরণ করে সফলতা লাভ করে।  সে মনে করে তার সাথে সবসময় মায়ের দোয়া রয়েছে।

সবার উপরে মাঃ ফারুক আহমেদ পরিচালিত সবার উপরে মা ছবিতে অভিনয় করেন রাজ্জাক, শাবানা, ইলিয়াস কাঞ্চন, অরুণা বিশ্বাস, হুমায়ুন ফরীদি, রাজিব, রাজ প্রমুখ। মুভিতে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন তন্দ্রা ইসলাম ও শাবানা। একটি বাচ্চা ছেলে তার মা শাবানাকে কাছে পাবার আকুতি এবং মা তন্দ্রা ইসলামকে দেয়া রাজ্জাকের প্রতিশ্রুতি নিয়েই ছবির গল্প পরিণতি পায়।

মায়ের অধিকার: ‘মায়ের অধিকার’ ১৯৯৬ সালে ছবিটি মুক্তি পায় । অন্যতম নারী প্রধান একটি ছবি। শিবলি সাদিক পরিচালিত এই ছবির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন ববিতা। আরো অভিনয় করেছিলেন শাবানাজ, আলমগীর, সালমান শাহ, হুমায়ূন ফরিদী, নাছির খান প্রমুখ। মায়ের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সন্তানের লড়াই ছবির গল্পে প্রাণ ছিল। তৎকালীন সময়ে ছবিটি রেকর্ড পরিমাণ ব্যবসা করে।

আম্মাজান : ১৯৯৯ সালে মুক্তি পেয়েছিলো ‘আম্মাজান’ ছবিটি কাজী হায়াত পরিচালিত । ছবিতে মান্নার ঠোঁটে আইয়ূব বাচ্চুর গাওয়া ‘আম্মাজান আম্মাজান’ গানটি পেয়েছিলো তুমুল জনপ্রিয়তা। ছবিটিও আকাশচুম্বী সফলতা লাভ করে। আম্মাজান ছবিতে মান্নার মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন শবনম । সন্তানের সামনে মায়ের সম্ভম হানি ও তারই প্রতিশোধ নিতে মত্ত থাকা সন্তানের গল্পের ছবি ‘আম্মাজান। মূলত মা ও নারীর প্রতি শ্রদ্ধা, ভালোবাসা ও সম্মান প্রদর্শনের ছবি এটি। এখানে আরও অভিনয় করেছিলেন মৌসুমী, আমিন খান ও ডিপজল।

মায়ের জন্য যুদ্ধঃ রুবেল, পপি, হুমায়ুন ফরীদি, রাজিব, সাংকো পাঞ্জা, নাসির খান, চিতা অভিনীত মায়ের জন্য যুদ্ধ। নায়ক মাসুম পারভেজ রুবেল পরিচালিত প্রথম মুভি। ছবিতে মায়ের চরিত্র করেন খালেদা আক্তার কল্পনা । রুবেলের মায়ের স্বীকৃতি, অধিকার ও সম্মত্তি ফিরিয়ে আনার যুদ্ধ। যুদ্ধে রুবেল সফল হয়, ছবিটিও ব্যবসায়িকভাবে সফল হয়।

মাতৃত্ব : ২০০৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি। পরিচালনা করেছেন জাহিদ হোসেন। একজন নারীর জীবনের সার্থকতা মাতৃত্বে। ছবির নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মৌসুমী। তার বিপরীতে ছিলেন হুমায়ুন ফরীদি। এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেই হুমায়ুন ফরীদি সেরা অভিনেতা শাখায় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

মায়ের মর্যাদা: দিলীপ বিশ্বাস পরিচালিত সিনেমাটিতে মা চরিত্রে অভিনয় করেন ববিতা ও ডলিজহুর। এদের বিপরীতে অভিনয় করেন সোহেল রানা। এছাড়াও মান্না, মৌসুমী, শাকিব খান, শাবনুর, এজাজ, হারুন, হুমায়ূন ফরিদীও অভিনয় করেছেন। ২০০৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিটি ব্যবসায়িক সফলতা লাভ করে। মুভিটিতে মায়ের মর্যাদা অক্ষুণ্ণ রাখতে সন্তানদের অটুট প্রতিজ্ঞা ছিল।

মায়ের চোখঃ মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত মায়ের চোখ ছবিতে মায়ের ভুমিকায় অভিনয় করেছেন আনোয়ারা। এছাড়াও আমিন খান, পুর্নিমা, ডিপজল, রেসি, মিজু আহমেদ, কাজী হায়াত প্রমুখ অভিনয় করেন।

মা আমার স্বর্গঃ শাকিব খান, পুর্নিমা, মিশা, আলীরাজ, আফজাল শরীফ অভিনীত মুভিটি পরিচালনা করেছেন জাকির হোসেন রাজু। মায়ের ভুমিকাটিতে অভিনয় করেন ববিতা।মুভিটির গল্পে মাকে বেহেশতের সাথে তুলনা করা হয়।

মায়ের জন্য পাগল: আহমেদ নাসির পরিচালিত মা শিরোনামের এই মুভিতে অভিনয় করেন সোহেল রানা, ববিতা, শর্মিলী আহমেদ, মারুফ, ইমন, পূর্ণিমা, মিশা সওদাগর, ইলিয়াস কোবরা প্রমুখ। সোহেল রানা তার মা শর্মিলী আহমেদের জন্য পাগল, গল্পের এক পর্যায়ে ববিতা সন্তান রেখে বাড়ী ছেড়ে চলে যায়। বড় ছেলে মারুফ মা ববিতার জন্য পাগল। ঘটনাচক্রে দুই ছেলে মা ববিতাকে বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে আসে।

খোদার পরে মাঃ শাকিব খান, সাহারা, মিশা, কাজী হায়াত অভিনীত মুভিটি পরিচালনা করেছেন শাহীন সুমন। মায়ের ভুমিকাটিতে অভিনয় করেন ববিতা।

বাংলার মাঃ আলমগীর, শাবানা, অমিত হাসান, শাহনাজ, আনোয়ার হোসেন, দিলদার, অমল বোস অভিনীত মোস্তফা আনোয়ার পরিচালিত বাংলার মা।

আমাদের মা মমতাময়ী, স্বামী-সন্তানের প্রতি অধিক আবেগী। মায়েরা জীবনের সবটুকু তাদের জন্য ত্যাগ করেন। সেলুলয়েড ফিতার আবর্তে মা-দের আমরা দেখি ত্যাগী আর মমতাময়ী হিসেবে। দিন বদলেছে, এখন বাংলাদেশের মায়েরা সংগ্রামী, পরিশ্রমী ও কর্মমুখীও বটে। ঢালিউডের সিনেমায় মা চরিত্র মমতাময়ী পাশাপাশি, কর্মক্ষম ও সাহসী নারী হিসেবে উপস্থাপন এখন সময়ের দাবি।

লেখকঃ গল্পকার ও কবি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে