নেইমারের পেনাল্টি মিস, এমবাপ্পের জোড়া গোল

0
122
ছবি: এএফপি

গতকাল মাঠে নেমেছিলেন নেইমার, কিলিয়ান এমবাপ্পে ও মাউরো ইকার্দি-ত্রয়ীর সবাই। তিনজনের মধ্যে দুজন গোল করলেও গোল করতে পারেননি নেইমার। উল্টো পেনাল্টি মিস করেছেন একটি। এতেও সেঁত এতিয়েনকে বিধ্বস্ত করতে সমস্যা হয়নি পিএসজির। প্রতিপক্ষের মাঠে গিয়ে ৪-০ গোলের জয় তুলে এনেছে পিএসজি। লিগ ওয়ানে এটা পিএসজির টানা পঞ্চম জয়।

খেলার নবম মিনিটেই গোল দিয়ে এগিয়ে যায় পিএসজি। স্প্যানিশ লেফটব্যাক হুয়ান বার্নাতের শট গোললাইন থেকে এতিয়েনের এক ডিফেন্ডার ফেরালে বল চলে যায় ডি-বক্সের বাইরে ওঁত পেতে থাকা আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার লিয়ান্দ্রো পারেদেসের কাছে। দুর্দান্ত এক ভলিতে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন পারেদেস। যদিও গোলের পেছনে এতিয়েনের ডিফেন্ডার ওয়েসলি ফোফানারও ভূমিকা আছে। তাঁর পায়ে বল লেগে দিক পরিবর্তন করে বল ঢুকে যায় জালে। এমনিতে পিএসজির কোচ টমাস টুখেল লিয়ান্দ্রো পারেদেসকে তেমন একটা খেলাতে চান না, গত দলবদলে রিয়াল বেতিসের কাছে বিক্রিও করে দিতে চেয়েছিলেন, কিন্তু গত কয়েক ম্যাচে পারেদেসের পারফরম্যান্স তাঁর ভাবনাকে পাল্টাতে বাধ্য।

ম্যাচে এতিয়েন যা একটু প্রতিরোধ করছিল, তা আরও কমে যায় ২৫ মিনিটের পর। পারেদেসকে বাজেভাবে ট্যাকল করে সরাসরি লাল কার্ড পান এতিয়েনের আইভোরিয়ান মিডফিল্ডার জ্যাঁ-উদে আহালু। প্রতিপক্ষের একজন কম থাকার সুবিধা বাকি ম্যাচে কড়ায়-গন্ডায় নিয়েছে পিএসজি। ম্যাচের ৪৩ মিনিটে নেইমারের দুর্দান্ত এক পাসে গোল করেন এমবাপ্পে।

দ্বিতীয়ার্ধে ৭২ মিনিটে ফরাসি লেফটব্যাক লেভিন কুরজাওয়ার ক্রস থেকে দুর্দান্ত ভলিতে গোল করে স্কোর ৩-০ করেন মাউরো ইকার্দি। পরে ম্যাচ শেষের এক মিনিট আগে নিজের দ্বিতীয় গোল করে এতিয়েনের কফিনে শেষ পেরেকটা ঠুকে দেন এমবাপ্পে। ইকার্দির গোলের আগে নেইমারকে ফাউল করার কারণে পেনাল্টি হজম করে এতিয়েন। কিন্তু সে পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন নেইমার নিজেই। প্রতিপক্ষের গোলরক্ষককে ভিন্ন দিকে পাঠাতে সফল হলেও নেইমারের বল গিয়ে লাগে গোলবারে।

১৭ ম্যাচে পিএসজির পয়েন্ট ৪২। এক ম্যাচ বেশি খেলে সাত পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে মার্শেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে