পুলিশি সহায়তায় বৃদ্ধ মা-বাবা ফিরে পেল নিজ বাড়ি

0
36

বৃদ্ধ বাবা জামেরুল ইসলাম (৭৫) এবং মা রাশেদা বেগমের (৭০) কাছ থেকে শেষ সম্বল বাড়ির জমি টুকু রেজিস্ট্রি করে নিয়ে ভরণপোষণ বন্ধ করে দিয়েছিল তাদের তিন ছেলে। শুধু তাই নয় খাবার চাওয়ায় বাড়ি থেকে বের করে দেয় তাদের।

শুধু তাই নয় ওই বৃদ্ধ-বাবা মার থাকার ঘরটিও ভেঙ্গে নিয়ে গেছেন তারা। এ ঘটনা জানাজানি হলে পুলিশের সহায়তায় তারা আবার তাদের ঘর ফিরে পায়। সোমবার সকালে পুলিশের সহযোগিতায় ওই বৃদ্ধা বাবা-মা তাদের বাড়ি ফিরে পেয়েছে বলে জানা গেছে।

গুরুদাসপুর পৌর সদরের ১নং ওয়ার্ড উত্তর নারীবাড়ি মহল্লায় ওই ঘটনা ঘটেছে। ছেলেদের হাতে নির্যাতিত বাবা-মা জানান, এক সময় তাদের সহায় সম্পত্তি ছিল।

রাশেদা বেগম জানান, তার স্বামী প্যারালাইসিসের রোগী। তার চিকিৎসার জন্য জমিজমা শেষ। বাড়িতে মাত্র তিন শতক জায়গা ছিল তাদের নামে, সে সম্পত্তি লিখে নেন তিন ছেলে। তাদেরকে ভরণপোষণ করানোর আশ্বাস দিয়ে ওই সম্পত্তি লিখে নেয় তিন সন্তান জালাল, আলাল, ও রসুল। কিছুদিন পর তাদের ভরণপোষণ বন্ধ করে দেয় তারা।

তিনি জানান, রোববার ছোট ছেলে মোফাজ্জলের কাছে খাবার চান তিনি। তখন তার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতে থাকে মোফাজ্জল। এক পর্যায়ে বৃদ্ধা মাকে বাড়ি মেরামতের অজুহাতে বাসা থেকে তাড়িয়ে দেয়। এ সময় তারা উপায়ন্তর না পেয়ে পার্শ্ববর্তী শহীদ মবিদুল উচ্চ বিদ্যালয়ের বারান্দায় আশ্রয় নেয়। পরবর্তীতে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মিটিং করতে এসে ওই দৃশ্য দেখে তাদেরকে একটা কক্ষ খুলে দেন।

রাশেদা আরও জানান, খাবারের কষ্ট আর অভাবের তাড়নায় ১নং ওয়ার্ডের কমিশনার মো. মুজিবুর রহমানের কাছে ত্রাণ চান। তিনি তার ছেলেদের ডেকে পাঠান। ত্রাণের তালিকায় বৃদ্ধার নাম দিতে চান মুজিবুর। কিন্তু ছেলেরা নাম দিতে দেয়নি।

স্থানীয় ১নং ওয়ার্ডের কমিশনার মুজিবুর রহমান বলেন, ত্রাণের জন্য বৃদ্ধা আমার কাছে এসেছিলেন। আমি মাঝে মধ্যেই ত্রাণ সহায়তা দিয়ে থাকি। ছেলে ও ছেলেদের স্ত্রী কেউ দেখতে পারে না তাই ওই স্কুলে গিয়ে থাকে।

তিনি আরও বলেন, বৃদ্ধা মা বাবাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার ঘটনা তিনি আগে থেকেই জানেন । ইতিপূর্বেও বহুবার বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন ওই অসহায় মা-বাবাকে। তিনি তাদের ছেলেদের চাপ দিয়ে বাড়িতে তুলে দিয়েছেন।

গুরুদাসপুর থানার ওসি মোজাহারুল ইসলাম জানান, তিনি ঘটনাটি জানতে পেয়ে রোববার রাতে তার তিন ছেলেকে আটক করা হয়। পরে তাদের বাবা-মা’র জমি ফেরত দেয়া এবং বৃদ্ধ বাবা-মাকে যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে ভরণপোষণ করবে মর্মে মুচলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে