বড়াইগ্রাম পৌর নির্বাচনকে ঘিরে ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ, উজ্জীবিত নেতাকর্মীরা

0
88

নিজস্ব প্রতিবেদক, বড়াইগ্রাম:
নাটোরের বড়াইগ্রাম পৌরসভার আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে নেমেছে আওয়ামী লীগের বিবাদমান দুটি পক্ষ। এমনকি নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত বর্তমান মেয়রসহ অপর তিন প্রার্থীও প্রকাশ্যে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন। এভাবে নিজেদের বিভেদ ভূলে এক সঙ্গে নির্বাচনী কর্মকান্ডে ঐক্যবদ্ধভাবে ভূমিকা রাখায় সাধারণ নেতাকর্মীরা দারুণভাবে উজ্জীবিত হয়ে উঠার পাশাপাশি বিজয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী হয়ে উঠেছেন।

জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে বড়াইগ্রামে আওয়ামী লীগ এর নেতাকর্মীরা স্থানীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস ও উপজেলা চেয়ারম্যান ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী সমর্থিত দুটি গ্রুপে বিভক্ত ছিলো। সরকারি সভা-সেমিনার ছাড়া রাজনৈতিক বা দলীয় কোন কর্মসূচিতে তাদেরকে এক সঙ্গে দেখা যেতো না। কিন্তু এবারের পৌর নির্বাচনে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মাজেদুল বারী নয়ন নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকে সে চিত্র পাল্টে যেতে শুরু করেছে।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরাই ঐক্যবদ্ধভাবে নয়নকে বিজয়ী করতে মাঠে নেমেছেন। এতে বড়াইগ্রামের আওয়ামী রাজনীতিতে এক প্রকার মিলনের সুর বেজে উঠেছে বলেই মনে করছেন নেতাকর্মীরা।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে নাটোর পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি, বনপাড়া পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মেয়র কেএম জাকির হোসেন, স্থানীয় সাংসদ অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুসের মেয়ে যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি কোহেলী কুদ্দুস মুক্তি, সাংসদ পুত্র আসিফ আব্দুল্লাহ শোভন বিন কুদ্দুস, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল কুদ্দুস মিয়াজী, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, বড়াইগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক সরকারসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা নৌকার সমর্থনে মাঠে ময়দানে কাজ করে যাচ্ছেন।

এছাড়া ইউপি চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হক, মমিন আলী, আব্দুস সালাম খান, নীলুফার ইয়াসমিন ও আনিসুর রহমানও পৌর এলাকায় এসে নিজ নিজ অনুসারীদের নিয়ে নৌকার পক্ষে গণসংযোগ করছেন।

অপরদিকে, বরাবর ভিন্ন মেরুতে অবস্থান নেয়া জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী ও তার সমর্থিত নেতাকর্মীরাও মাজেদুল বারী নয়নের পক্ষে ভোট চাচ্ছেন, ভোটারদের সাথে গণসংযোগ করছেন। এদিকে, গত কয়েক মাস যাবৎ মাঠে-ময়দানে তৎপরতা চালিয়ে শেষ বেলায় দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েছেন পৌরসভার বর্তমান মেয়র আব্দুল বারেক সরদার, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মাহবুব উল হক বাচ্চু ও জেলা পরিষদ সদস্য যুবলীগ নেতা আবুল কালাম জোয়াদ্দার।

তবে দলীয় মনোনয়ন না পেলেও মান-অভিমান ভূলে তারাও বর্ধিত সভায় অংশ নিয়ে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাওয়াসহ নৌকাকে বিজয়ী করতে গণসংযোগে অংশ নিচ্ছেন। দীর্ঘদিন পরে নির্বাচনকে ঘিরে সব বিবাদ ভূলে দলীয় নেতৃবৃন্দ এক মেরুতে অবস্থান নেয়ায় আওয়ামী লীগ-যুবলীগ-ছাত্রলীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা দারুণভাবে উজ্জীবিত হয়ে উঠেছেন।

এ ব্যাপারে বড়াইগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক সরকার বলেন, এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে নেমেছেন। এভাবে একতাবদ্ধ থাকলে নির্বাচনে নৌকার বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না ইনশাল্লাহ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে