লালপুরের গোপালপুর পৌরসভার নির্বাচনকে ঘিরে মাঠে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা

0
110

আসন্ন লালপুরের গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে মাঠে নেমেছেন আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা। বিশেষ করে পৌর মেয়র পদে মাঠপর্যায়ে আওয়ামী লীগের ৭ প্রার্থীর সরব উপস্থিতি দেখা গেলেও নীরব রয়েছে বিএনপি। এখনো বিএনপির কোনো প্রার্থী নির্বাচনের ঘোষণা দেননি কিংবা প্রচারণায় নামেননি।

আসছে ডিসেম্বরে গোপালপুর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও সম্ভাব্য প্রার্থীরা এখনই পাড়া-মহল্লায় মতবিনিময়, উঠান বৈঠক, গণসংযোগ ও ভোটারদের দোয়া ও সমর্থন চেয়ে পোস্টারিং শুরু করেছেন। এতে গোপালপুর পৌর এলাকায় আগেভাগেই শুরু হয়ে গেছে নির্বাচনী আমেজ। দলীয় প্রতীকে মেয়র পদে নির্বাচন হওয়ার কারণে আওয়ামী লীগের ৭ সম্ভাব্য প্রার্থীই নৌকা প্রতীকের জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন।

পৌরসভার বর্তমান মেয়র পৌর বিএনপির সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম মোলাম। পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি রোকসানা মুর্তুজা লিলি গত পৌর নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিএনপির প্রার্থীর কাছে পরাজিত হন। আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরিন দন্দের কারনেই পারাজিত হতে হয়েছে লিলিকে এমনই দাবি নেতাদের। এবারও তিনি নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। নৌকা প্রতীক পেতে কেন্দ্রে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। এছাড়া মনোনয়ন দৌড়ে আছেন লালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক ছাত্র নেতা সাইফুল ইসলাম, নাটোর জেলা তাঁতী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক ইকবাল হোসেন রিপন, লালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক কাজী আছিয়া জয়নুল বেনু, গোপালপুর পৌর যুবলীগের সভাপতি নাজমুল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ দপ্তর সম্পাদক শফিউল আলম শফি, লালপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন মনি বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে বর্তমান মেয়র ও পৌর বিএনপির সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম মোলাম, পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন কাচির নাম শুনা যাচ্ছে। তবে বর্তমান মেয়রের উন্নয়ন ও দলীয় কর্মকান্ড নিয়ে নানা সমালোচনা রয়েছে।

বিএনপির একটি অংশের অভিযোগ আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতাদের সাথে সুস্পর্ক গড়ে তোলে নানা অনিয়ম করে উন্নয়ন কাজের ক্ষতি করেছেন। তা ছাড়া দলীয় কোন কর্মকান্ডও করতে পারেনি। প্রায় ৫ বছর যাবত পৌর বিএনপির অফিসটিও বন্ধ রয়েছে। গোপালপুর পৌরসভার প্রথম নির্বাচিত মেয়র, নাটোর জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মন্জুরুল ইসলাম বিমলও নির্বাচন করবেন বলে শুনা যাচ্ছে। তিনি পরপর ২ বার মেযর এবং গোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদেন চেয়ারম্যান ছিলেন। গত নির্বাচনে পরাজিত হয়েছিল। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীক পেয়ে নির্বাচনে এলেও শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে পারেন নি। এবারে গোপালপুর পৌর সভার ভোটার সংখ্যা ১৯ হাজার ১শ ৩১। এর মধ্যে পুরুষ ৯ হাজার ৫ শ ৫৮, মহিলা ৯ হাজার ৫শ ৭৩।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে