সকল উন্নয়নে সাংবাদিকদের পাশে চান নাটোরের নবাগত জেলা প্রশাসক

0
64

নাটোর প্রতিনিধিঃ ‘আমি মধ্যবিত্ত ঘরের সন্তান, আমার মা একজন শিক্ষক ছিলেন, বাবা ছিলেন সরকারি কর্মচারী। বাবা মায়ের দোয়া রয়েছে আমার সাথে। তারা প্রত্যাশা করেন আমি যেন সৎ মানুষ ও এক আদর্শবান সরকারি কর্মকর্তা হতে পারি। এই প্রত্যাশায় আপনাদের সবাইকে সাথে নিয়ে বর্তমান সরকারের সকল কার্যক্রম বাস্তবায়নে একটি সুন্দর নাটোর গড়তে চাই। সকল উন্নয়ন কাজে আপনাদের সব সময় আমার পাশে পাবো’।

রবিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় নাটোরের নবনিযুক্ত জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ এসব কথা বলেন।মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার শরিফ শাওনের উপস্থাপনায় স্বাগত বক্তব্য দেন, জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ।

এসময় উন্মুক্ত আলোচনা সভায় প্রথম আলোর নাটোর প্রতিনিধি এডভোকেট মুক্তার হোসেন বলেন, সাংবাদিক এবং প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে একটি সুস্থ নাটোর গড়ে তোলা যায়। এ বিষয়ের তথ্যের আদান-প্রদান হয়ে উঠতে পারে অন্যতম মাধ্যম। তথ্যের আদান প্রদানে প্রশাসন ও সাংবাদিকদের মধ্যে কোনো বিভেদ তৈরি হবে না। নবনিযুক্ত জেলা প্রশাসক শামীম হোসেনের কাছে তিনি এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

সময় টেলিভিশন ও আমাদের সময়ের সাংবাদিক  আল মামুন নাটোরের স্কুলগুলোর শিক্ষাব্যবস্থার চিত্র তুলে ধরে কার্যকরী ভূমিকা গ্রহণ করার জন্য জেলা প্রশাসনকে অনুরোধ জানান।এনটিভির নাটোরের স্টাফ করেসপনডেন্ট হালিম খান বলেন, অতীতে সাংবাদিকরা সবসময় প্রশাসনের ভাল কাজের সাথে ছিল, বর্তমানে আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। নাটোরের উন্নয়ন স্বার্থে সাংবাদিকরা সব সময় প্রশাসনকে সহযোগিতা করে যাবে।

এসময় ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হোসেন নাটোরের বিভিন্ন ধরনের উন্নয়ন কার্যক্রমের বর্তমান সার্বিক অবস্থার চিত্র তুলে ধরেন। উন্নয়ন কাজগুলো কিভাবে এগিয়ে নেওয়া যায় তার ওপর আলোকপাত করেন। তিনি এ সময় হালতির বিল, চলনবিল এলাকায় পর্যটকদের জন্য হোটেল মোটেল নির্মাণ, নাটোরে বরাদ্দ হওয়া অর্থনৈতিক অঞ্চলের বর্তমান পরিস্থিতি, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, হাসপাতালসহ নানা বিষয় তুলে ধরেন।নাটোর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বাপ্পি লাহিড়ী নাটোরের কাঁচাগোল্লার মান ঠিক রাখা সহ বিভিন্ন পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে জেলা প্রশাসনের কার্যকরী ভূমিকার আশা প্রকাশ করেন।

সিনিয়র সাংবাদিক দেশ টেলিভিশন ও ভোরের কাগজের স্টাফ রিপোর্টার রনেন রায় বলেন, সাংবাদিক ও প্রশাসন যখন সুস্থ ও সুন্দর সম্পর্ক বজায় থাকে, তখন সে জেলার উন্নয়নে গতি আসে। সাংবাদিকরা তাদের প্রয়োজনে প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের বক্তব্য নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে, সে ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসক সব সময় তার দরজা সাংবাদিকদের জন্য উন্মুক্ত রাখবেন এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।এছাড়া নাটোর ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সভাপতি রেজাউল করিম রেজা নবনিযুক্ত জেলা প্রশাসকের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, আমরা বিশ্বাস করি তিনি ভালো মানুষের পাশাপাশি একজন ভালো প্রশাসক হয়ে নাটোরের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করবেন এবং বিভিন্ন উন্নয়নের ক্ষেত্রে বাধা দূরীকরণ ও সমস্যা সমাধানে সমন্বয় সাধন করবেন।

সবশেষে জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ তার বক্তৃতায় নাটোরের উন্নয়নে সবার সহায়তা কামনা করেন। সব সময় সাংবাদিকরা তার পাশে থাকবেন এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি। এছাড়া যে কোনো সময় যখনই কোনো তথ্য জানানোর প্রয়োজন মনে করবেন সব সময় তার সঙ্গে যোগাযোগ করবার জন্য তিনি আহ্বান জানান। সবার সম্মিলিত উদ্যোগে একটি সুন্দর নাটোর গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।মতবিনিময় সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাদিম সারোয়ার উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া অনুষ্ঠানে ইউ্নাইটেড প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি নবীউর রহমান পিপলৈু, এটিএন বাংলার সাংবাদিক জুলফিকার হায়দার জোসেফ, ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বুলবুল আহমেদ, যমুনা টিভির স্টাফ রিপোর্টার নাজমুল হাসান, বাংলা টিভির নাটোর প্রতিনিধি মেহেদি হাসান বাবু বক্তব্য রাখেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে