সারা দেশে বই উৎসব অনুষ্ঠিত

0
481
ছবি: সংগৃহীত

নাটোরে চার লাখ শিক্ষার্থীর হাতে সাড়ে ৩৭ লাখ বই

চলতি ২০২০ শিক্ষা বছরের প্রথম দিনে বুধবার নাটোর জেলায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের দুই হাজার ছয়টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চার লাখ তিন হাজার শিক্ষার্থীর হাতে বই উৎসবের মাধ্যমে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে ৩৭ লাখ ৪৮ হাজার নতুন পাঠ্য বই। সকাল দশটায় নাটোর সরকারি বালক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে জেলার মাধ্যমিক ও প্রাথমিক পর্যায়ের বই উৎসবের উদ্বোধন করেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য রত্না আহমেদ। অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ নতুন শ্রেণির শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সরকার একই সাথে সব বই একই দিনে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দিচ্ছে। এটি একটি অনন্য উদ্যোগ। শিক্ষার্থীরা যথাযথভাবে পড়াশুনা করে যোগ্য নাগরিক হয়ে গড়ে উঠলে সরকারের এই উদ্যোগ অর্থবহ হবে। জেলা প্রশাসক মোঃ শাহরিয়াজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষা অফিসার রমজান আলী আকন্দ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এরশাদ উদ্দিন আহমেদ, নাটোর সরকারি বালক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আমজাদ হোসেন ও নাটোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা দিল মাহমুদা। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এরশাদ উদ্দিন আহমেদ, নাটোর সরকারি বালক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আমজাদ হোসেন ও নাটোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা দিল মাহমুদা। জেলার সাতটি উপজেলা পর্যায়েও উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণের উপস্থিতিতে অনুরুপ বই উৎসব আয়োজন করা হয়। এছাড়া অন্যান্য প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যবৃন্দের উপস্থিতিতে সমাবেশের মাধ্যমে বই উৎসব আয়োজন করা হয় এবং শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেওয়া হয়। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস জানায়, জেলার সাতটি উপজেলায় বিভিন্ন পর্যায়ের মোট এক হাজার পাঁচশ’ ১০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক লাখ ৮৯ হাজার ছয়শ’ শিক্ষার্থীর জন্য প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পাঠ্য বইয়ের চাহিদা আট লাখ ৯৫ হাজার ৫০ কপি এবং ডিসেম্বরের প্রথমার্ধেই ওই চাহিদার শতভাগ বই জেলার সকল উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস আরও জানায়, জেলায় মাদ্রাসা, কারিগরিসহ মোট চারশ’ ৯৬টি মাধ্যমিক পর্যায়ের বিদ্যালয়ে আসন্ন শিক্ষাবর্ষে ইবতেদায়ী প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণী এবং ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণীর মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা দুই লাখ তের হাজার তিনশ’ ৯০জন। এসব শিক্ষার্থীর চাহিদা অনুযায়ী ২৮ লাখ ৫৩ হাজার ১৫ কপি পাঠ্য বইয়ের সবই নাটোর জেলা শিক্ষা অফিস থেকে ডিসেম্বর মাসেই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে সংশ্লি¬ষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে পাঠানো হয়েছে। একইভাবে ভোকেশনাল পর্যায়ে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের পাঠ্য বই জেলা শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে বিতরণ কার্যক্রমও শেষ হয়েছে।

ফরিদপুরে বই বিতরণ উৎসব দিবসে শিশুদের হাসি

নববর্ষের প্রথম দিনে ফরিদপুর উপজেলার বিভিন্ন স্কুলে নতুন পাঠ্যবই বিতরণ করা হয়। বনওয়ারীনগর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সকাল ১০টায় বই বিতরণ উদ্ভোধন করেন ফরিদপুর পৌর মেয়র খ. ম কামরুজ্জামান মাজেদ। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী, একাডেমিক সুপার ভাইজার শাকিল হোসেন, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আব্দুল গফুর, রফিকুল বারী, প্রেস ক্লাবের সভাপতি মো: আব্দুল হাফিজ প্রমূখ। এছাড়া বনওয়ারীনগর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাউৎনাগধাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোপালনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, খাগরবাড়ীয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, থানাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সোনাহারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ডেমরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ডেমরা উচ্চ বিদ্যালয়, পুংগলী ইউনিয়ন দ্বিমুখি উচ্চ বিদ্যালয়, দিঘলিয়া এ, জেড উচ্চ বিদ্যালয়, বেড়হাউলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বনওয়ারীনগর আলীম মাদরাসা, দেওভোগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফরিদপুর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়সহ উপজেলার প্রতিটি বিদ্যালয়ে শিশুদের মাঝে বই বিতরণ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক গোলাম হোসেন গোলাপ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমদ আলী, ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম কুদ্দুস, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন পারভীন মুক্তিসহ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী।

বই উৎসবে গুরুদাসপুরের, ৫৬ হাজার ৩৮০ শিক্ষার্থীর হাতে নতুন বই

সমাপনি ও বার্ষিক পরিক্ষা শেষ করে ২০১৯ শিক্ষাবর্ষকে বিদায় জানিয়েছে অগ্রগামি শিক্ষার্থীরা। ২০২০ নতুন শিক্ষাবর্ষের ১ জানুয়ারী নতুন বই পেয়ে হাজারো কচি-কাঁচা শিক্ষার্থী গভীর আগ্রহের অবসান ঘটিয়ে বই উৎসবে মেতে উঠেছে। সেই সাথে বিনামূলের নতুন পাঠ্যপুস্তক শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দিতে ব্যস্ত নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস। বুধবার দুপুরে নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস উপজেলার খুবজিপুর প্রাথমিক এবং হাইস্কুলে বিনামূল্যের ওই পাঠ্যবই বিতরণ উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।
জানা যায়, ২০২০ শিক্ষাবর্ষের জন্য উপজেলার প্রাক-প্রাথমিক থেকে নবম শ্রেনি পর্যন্ত এবতেদায়ী, মাধ্যমিক, দাখিল ও এসএসসি ভোকেশনাল শ্রেনির ৫৬ হাজার ৩৮০ শিক্ষার্থীর পাঠ্যপুস্তকের চাহিদা ছিল মোট ৫ লাখ ৭ হাজার ৫১০ খানা বই। তবে প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে শ্রেনিভিত্তিক ৯০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৬টি কেজি স্কুল ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৩৩০টি কেন্দ্রে বই পাঠানো হয়েছে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকে শ্রেনিভিত্তিক শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ হাজার ৭০০ জন। এরমধ্যে ১ম শ্রেনির ৫ হাজার ৩০০জন, ২য় শ্রেনির ৫ হাজার ৫০ জন, ৩য় শ্রেনির ৪ হাজার ৭৫০ জন, ৪র্থ শ্রেনির ৪ হাজার ৭০০ জন এবং ৫ম শ্রেনির শিক্ষার্থী রয়েছে ৪ হাজার ৫০০ জন। চাহিদা মোতাবেক পঞ্চম শ্রেনি পর্যন্ত ২৭ হাজার ২০০ শিক্ষার্থীর জন্য ১ লাখ ১৮ হাজার ৪৫০টি পাঠ্যপুস্তক শতভাগ পাওয়া গেছে।
অপরদিকে ২০২০ শিক্ষাবর্ষের জন্য ৩১টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনি হতে ৯ম শ্রেনি পর্যন্ত ১৭ হাজার ৯০০ শিক্ষার্থীকে ২ লাখ ৬২ হাজার ৬০০ খানা বই বিনামূল্যে বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়াও স্বতন্ত্র ১৬টি এবং সংযুক্ত ১৬টিসহ ৩২টি এবতেদায়ীর ১ম শ্রেনি হতে ৫ম শ্রেনির ৬ হাজার শিক্ষার্থীকে ৪২ হাজার ৪০০ খানা বই প্রদান চলছে। ১৬টি দাখিল মাদরাসার ৬ষ্ঠ হতে ৯ম শ্রেনি পর্যন্ত ৩ হাজার ৪০০ শিক্ষার্থীকে ৪৯ হাজার ৯০০ খানা এবং ১৬টি এসএসসি ভোকেশনাল শ্রেনির ১ হাজার ৮৮০ জন শিক্ষার্থীকে ৩৪ হাজার ১৬০ খানা বইসহ মোট ৩ লাখ ৮৯ হাজার ৬০ খানা পাঠ্যপুস্তক বিনামূল্যে বিতরন করা হবে। উপজেলার প্রতিটি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শ্রেনির বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা একসাথে নতুন বছরের বই উৎসব করছে বলে শিক্ষা অফিস দাবী করেছে।

বীরগঞ্জে বই উৎসব

বীরগঞ্জে ১লা জানুয়ারী সকালে ভাবকী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় সহ শতশত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উদ্ভাবনকে কাজে লাগিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে টেকসই উন্নয়নের পথে এই স্লোগানকে সামনে রেখে উপজেলার ভোগনগর ইউনিয়নের ভাবকী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এসএমসি’র সভাপতি রবিউল ইসলাম ছাত্রছাত্রীদের মাঝে নুতন বছরের নুতন বই বিতরন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মাহাতাব উদ্দিন ও সেচ্ছাশ্রমে নিয়োজিত মোঃ মোজাম্মেল হক।

নতুন বইয়ের গন্ধ শুঁকে ফুলের মতো ফুটব, বর্ণমালার গরব নিয়ে আকাশ জুড়ে উঠব এই চিন্তাকে সামনে রেখে উপজেলার ২০ কিলোমিটার উত্তরে শতগ্রাম ইউনিয়নের ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ দলিল উদ্দিন ছাত্রছাত্রীদের মাঝে নুতন বছরের নুতন বই বিতরন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ গোলাম মোস্তফা, শিক্ষক মন্ডলী, ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবক।

রাজশাহীতে বছরের প্রথম দিনেই নতুন বই পেলো শিক্ষার্থীরা

নতুন বইয়ের মৌ মৌ গন্ধে মাতায়ারা স্কুল প্রাঙ্গন। সারি ভাবে দাঁড়িয়ে বই নেয়ার অনন্দটাই আলাদা। তারপরেও আবার সববই নতুন। পাতায় পাতায় ঝকঝকে ছবি। বই জুড়ে গল্প আর ছড়ার মেলা। এবছর নতুন বইয়ে গন্ধে মাতোয়ারা হলো রাজশাহীর শিক্ষার্থীরা। এ বছরের প্রথম দিনে নতুন বই পেলো রাজশাহীর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের প্রায় ৫ লাখ শিক্ষার্থী ৫০ লাখ নতুন বই। বুধবার সকালে মহানগরীর অগ্রণী বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ে প্রধান অতিথি হিসেবে বই উৎসবের উদ্বোধন করেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। সেখানে আনুষ্ঠানিকভাবে বেলুন উড়িয়ে বিনামুল্যে বই বিতরণ উৎসব উদ্বোধন করা হয়। এসময় বিশেষ অতিথি ছিলেন, প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের বিভাগীয় উপপরিচালক আবুল কালাম আজাদ, জেলা প্রশাসক হামিদুল হক, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের বিভাগীয় উপপরিচালক শারমিন ফেরদৌস চৌধুরী ও স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মোশাররফ হোসেন বাচ্চ প্রমুখু। এরপর মহানগরীর মিশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বই বিতরণের উদ্বোধন করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। তিনি শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন। অন্যদিকে, মহানগরীর বিভিন্ন স্কুলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যবই তুলে দেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও বিশিষ্ট সমাজসেবী শাহীন আকতার রেনী। এসময় তিনি বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষার প্রসারে গুরুত্ব দিয়েছে। শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করতে বছরের শুরুতেই তাদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।এসময় জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন জানান, চাহিদা অনুযায়ী প্রত্যেক স্কুলে গত ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে নতুন বইয়ের সেট পাঠিয়ে দেওয়া হয়। বুধবার সকাল থেকে বই বিতরণ শুরু করা হয়। এবার রাজশাহীতে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত মাধ্যমিক স্তরে ১ লাখ ৮৩ হাজার ৩৮৩ শিক্ষার্থী রয়েছে। তাদের মধ্যে ৪৫ লাখ ৮৪ হাজার নতুন বই বিতরণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে রাজশাহীতে সরকারি স্কুল ৬টি, বেসরকারি স্কুল ৫৮৪টি ও মাদ্রাসা রয়েছে ২০৩টি। এছাড়া ৩টি ইংরেজিমাধ্যম স্কুল রয়েছে। অপরদিকে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুস সালাম জানান, রাজশাহী জেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ১ হাজার ৪৯৬টি। শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ লাখ ১১১ জন। তাদের মাঝে ১৪ লাখ ১১ হাজার ২৯৫টি নতুন বই বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়া প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে একই সংখক শিক্ষার্থীর মাঝে ৪৭ হাজার ৩০টি নতুন বই বিতরণ হয়েছে।

লালমনিরহাটে শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরণ

বুধবার নতুন বছর শুরুর ১লা জানুয়ারী ২০২০ সালে সদর উপজেলার দেউতিরহাট উচ্চবিদ্যালয়, সরকারী বালক ও বালিকা উচ্চবিদ্যালয়,কদমতলা উচ্চবিদ্যালয়,সাকোয়া তাজ মাহমুদ উচ্চবিদ্যালয়,সিঙ্গারদ্ধারা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, মহেন্দ্রনগর উচ্চবিদ্যালয়,বুড়িরহাট উচ্চবিদ্যালয়,কবি শেখ ফজলল করিম বালিকা বিদ্যারয়সহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে বেলা ১১টায় একযোগে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ করা হয়েছে। লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আবু জাফর এর সিদ্ধান্তক্রমে জেলার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উচ্চবিদ্যালয়গুলোতে একযোগে বই বিতরণ করেন সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়গুলয়ের ম্যানেজিং কমিটি,প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকগন উৎসব মুখর আয়োজনে বই বিতরণ করেন। জেলার বিভিন্ন সরকারী অফিসের কর্মকর্তাদের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে দেখা গেছে। তবে সবচেয়ে বেশি সদর উপজেলার দেউতিরহাট উচ্চবিদ্যালয়, মহেন্দ্রনগর উচ্চবিদ্যালয়,বুড়িরহাট ও শেখ ফজলল করিম বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে ব্যাপক উৎসব মুখর মখরীত হয়ে উঠে শিক্ষার্থীরা। আয়োজিত অনুষ্ঠানে ইউপি চেয়ারম্যান,জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় ব্যাক্তিবর্গগন উপস্থিত ছিলেন।

আটঘরিয়ার কয়রাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ে বই বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠিত

পাবনার আটঘরিয়ায় নতুন বছরের শুরুতেই শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেওয়ার মাধ্যমে বই বিতরণ উৎসব পালিত হয়েছে।

বুধবার উপজেলার ঐতিহ্যবাহী কয়রাবাড়ী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে বই বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে শুভ উদ্বোধন করেন আটঘরিয়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আ.লীগের সভাপতি মো. শহিদুল ইসলাম রতন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন দেবোত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মোহাঈম্মীন হোসেন চঞ্চল।

কয়রাবাড়ী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. শাহাদত হোসেনের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্যদেন প্রধান শিক্ষক মো. সাইফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. জিল্লুর রহমান।

আটঘরিয়ায় বিভিন্ন বিদ্যালয়ে বই উৎসব অনুষ্ঠিত
মো. জিল্লুর রহমান রানা
সারা দেশের ন্যায় পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্য দিয়ে বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার আটঘরিয়া সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, দেবোত্তর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দেবোত্তর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, দেবোত্তর কবি বন্দে আলী মিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, চাঁদভা ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে শুভ উদ্বোধন করেন আটঘরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তানভীর ইসলাম।

আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ ফুয়ারা খাতুন এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এসএম শাহজাহান আলী, আটঘরিয়া সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.বেলাল হোসেন খান, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সিরাজুম মনিরা, সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শিউলী আহমেদ, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার শিপ্রা রানী মন্ডল, চাঁদভা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আশরাফুল আলম, অধ্যক্ষ মাওলানা মো. রইচ উদ্দিন, দেবোত্তর কবি বন্দে আলী মিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাতাব উদ্দিন, দেবোত্তর পাইলট বালিকা উচ্চি বদ্যালয়ের প্রদান শিক্ষক মাহবুবা খাতুন, দেবোত্তর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছা. দেলোয়ারা বেগম।

আদমদীঘিতে বই বিতরন উৎসব উদ্বোধন

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলায় বই বিতরণ উৎসব আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে আদমদীঘি আইপিজে উচ্চ বিদ্যালয় ও মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গনে পৃথক বই বিতরণ উৎসব আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহি অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে দুই প্রতিষ্ঠানে বই বিতরণ উৎসব উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম খান রাজু। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আবু রেজা খান, ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদুর রহমান পিন্টু, সালমা বেগম চাঁপা, ওসি জালাল উদ্দীন, বিআরডিবির চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাবু, শিক্ষা অফিসার সামছুল হক দেওয়ান, আইপিজে উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনজু আরা বেগম, মুক্তিযোদ্ধা স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবির উদ্দীন প্রমূখ। সভায় প্রধান অতিথির নতুন বছরে শিক্ষার্থিদের হাতে বই তুলে দিয়ে বই উৎসবের উদ্বোধন করেন। অত্র উপজেলায় ৩০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১৯টি মাদরাসা, ৯৮টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৩৫টি কেজি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহে মোট ২ লাখ ৭২ হাজার ৮৫০ টি বই বিতরণ করা হয়।

কালিগঞ্জে নতুন বই পেয়ে আনন্দে মাতোয়ারা শিক্ষার্থীরা

শিক্ষা দিয়ে গড়বো দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ- এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে কালিগঞ্জে নতুন বছরের বই উৎসব পালিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১টায় উপজেলার চাম্পাফুল স্কুলে এ বই উৎসব পালিত হয়। বিদ্যালয়ের ভারপ্রপ্ত প্রধান শিক্ষক উদয় ভাস্কর বন্দোপাধ্যায়ের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কালিগঞ্জ উপজেলা আ‘লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশে শিক্ষক ও অবিভাবকদের আরো আন্তরিক হতে হবে। শিক্ষার্থীরা ভাল ফলাফল করলে বিদ্যালয় তথা অবিভাবকদের মুখ উজ্বল হবে। আমি চাইবো শিক্ষকরা শুধু হাজিরা দিয়ে তাদের দায়িত্ব শেষ করবেন না, যথাযথ দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট থাকবেন। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষক বান্ধব সরকার। এ সরকার মানসম্মত শিক্ষার ক্ষেত্রে ব্যপক অবদান রাখছেন। শিক্ষার্থীরা এই জাতীর কাছে ঋণী, তাদের এই শিক্ষার ঋণ শোধ করতে হলে মানসম্মত শিক্ষা গ্রহন করে সমাজ তথা দেশের কল্যানে অবদান রাখতে হবে। সহকারী শিক্ষক ফারুক হোসেনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা বরকতউল্লা গাজি, স্কুলের সাবেক সহকারী প্রধান শিক্ষক আবুল খায়ের, প্রভাষক মামুনুর রশিদ প্রমুখ। এসময় বিদ্যপিঠের সকল শিক্ষক, অবিভাবক, ছাত্র-ছাত্রী, সুধী ও সাংবাদিক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। নতুন বই পেয়ে শিক্ষার্থীদের মুখে ছিল খুশির ঝিলিক। প্রথম দিনেই বই উৎসব শিক্ষার্থীদের মাঝে বাড়িয়ে দিয়েছে আনন্দের মাত্রা। বিনামূল্যে নতুন বই পেয়ে আনন্দে মেতে ওঠে শিক্ষার্থীরা।

পাবনার বেড়ায় ৪ হাজার শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই ও স্কুল ব্যাগ বিতরণ

পাবনার বেড়ায় ৪ হাজার শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বইয়ের সাথে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে নতুন স্কুল ব্যাগ বিতরণের ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহন করা হয়। এ উপলক্ষে বুধবার (০১’জানুয়ারী) দুপুরে বেড়া উপজেলার মাসুমদিয়া ইউনিয়নের কাজিরহাট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ২২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন বই ও স্কুল ব্যাগ পেয়ে আনন্দ উল্লাসে মাতোয়ারা হয়ে উঠে।
শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন স্কুল ব্যাগ ও বই বিতরণ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ। মাসুমদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মিরোজ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবির এমপি। তিনি বলেন, আজকের শিশুরা আগামিতে যোগ্য মানুষ হয়ে দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে হবে। বাবা মার ভালো সন্তান ও দেশের সুনাগরিক হিসাবে গড়ে উঠতে হলে নিয়মিত লেখাপড়া করতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমাদের সময়ে আমরা পুরাতন বই দিয়ে পড়েছি। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিলষ্ট নেতৃত্বের তোমরা প্রতিবছরেই নতুন বই পাচ্ছো।
মো. মকবুল হোসেন ও রেজাউল করিম মৃধার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, পাবনার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাহিদ নেওয়াজ, স্থানীয় সরকার বিভাগ পাবনার ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক আফরোজা আখতার, বেড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, বেড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসিফ আনাম সিদ্দিকী, ডিস্ট্রিক ফ্যাসিলেটেটর, এলজিএসপি-৩ মো. মনোয়ার হোসেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. তোফাজ্জল হোসেন। এ সময় মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের অংশগ্রহণে মুখরিত হয়ে উঠে সমগ্র বিদ্যালয় চত্তর।
উল্লেখ্য, পাবনা জেলার ৯টি উপজেলার ৭ লক্ষ ৭০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষার্থীর মধ্যে ৬৫ লক্ষ ৯৭ হাজার ৬৫৫ টি নতুন বই এবং মাধ্যমিক শাখায় (ভকেশনাল ও মাদ্রাসাসহ) ৩ লক্ষ ৫৩ হাজার ৯৬০ শিক্ষার্থীর মধ্যে ৪৬ লক্ষ ৭৫ হাজার ৫৪৫ টি নতুন বই প্রদান করা হয়। এ দেশের মধ্যে এবারেই প্রথম পাবনার বেড়ায় নতুন বছরে নতুন বইয়ের সঙ্গে নতুন স্কুল ব্যাগ প্রদান করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করা হলো।

বর্ণমালা কিন্ডার গার্টেনের বই উৎসব

১ জানুয়ারি বর্ণমালা কিন্ডার গার্টেনের ২০২০ শিক্ষা বর্ষে কার্যক্রম শুরু হয় বই উৎসবের মধ্যে দিয়ে। বর্ণমালা কিন্ডার গার্টেনের অধ্যক্ষ মোঃ আলতাব এলাহির সভাপতিত্বে বই উৎসবের প্রধান অতিথি ছিলেন, স্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি কাজী সরওয়ার রহমান। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, ২০২০ সাল আমাদের বাঙ্গালীর জাতির জন্য একটি ঐতিহাসিক বছর, কারণ এ বছর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্ম শত বার্ষিকী হওয়ায় পালিত হচ্ছে মুজিব বর্ষ হিসাবে। এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন, সম্পাদক হোসাইন কবির রাজ, সায়েদুল হাসান কিরণ, মোঃ সামসুজ্জোহা টপর, নিরু সামসুন্নাহার, শিরিনা জেয়াসমিন, সাজিদুর রহমান প্রমুখ। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, মোঃ ফরহাদ উল্লাহ, মোঃ আলাল উদ্দিনসহ স্কুলের অভিভাবকবৃন্দ ও শিক্ষক মন্ডলী। ছাত্র-ছাত্রীরা নতুন বই পেয়ে আনন্দ উৎসব পালন করে। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন, আঞ্জুমান আরা শিখা।

পাবনার পারখিদিরপুর হাই স্কুলে বই উৎসব অনুষ্ঠিত

দেশের অন্যান্য স্থানের মত পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী পারখিদিরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১ জানুয়ারিতে ব্যাপক উৎসাহ, উদ্দীপনা আর আনন্দঘন পরিবেশে বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ ইন্তাজ আলী খানের সভাপতিত্বে উক্ত বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। বই উৎসব অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আফতাব হোসেন স্বাগত বক্তব্য রাখেন। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন মোঃ আঃ গফুর মিয়া, চেয়ারম্যান, মাজপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ ও সাধারণ সম্পাদক আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোঃ রফিকুল ইসলাম, মোঃ তায়েজ উদ্দিন, মোঃ রবিউল ইসলাম, মোঃ জামাত আলী, ডা. মোঃ শাহজাহান আলী, ইউপি সদস্য মোঃ শহিদুল ইসলাম প্রাংসহ বিদ্যালযের শিক্ষক, কর্মচারী, অভিভাবক, এলাকাবাসী, জন প্রতিনিধি, ছাত্রছাত্রী উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ যে, বিদ্যালয়ের বই উৎসবে সাজ সাজ রব পড়ে যায়। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের হাতে বছরের শুরুতেই বই তুলে দিতে পারায় প্রধান শিক্ষক মোঃ আফতাব হোসেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

সুন্দরগঞ্জে নতুন বই বিতরণ উৎসব

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় ব্যাপক উৎসহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে নতুন সালের নতুন বই বিতরণ উৎসব পালিত হয়েছে। বুধবার ২০২০ সালের প্রথম দিনে উপজেলার প্রতিটি সরকারি বেসরকারি প্রাথমি, মাধ্যমিক স্কুল ও মাদরাসায় যষ্ঠ শ্রেণি হতে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মাঝে সরকারিভাবে বিনা মূল্যে পাঠ্যবই বিতরণ করা হয়। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম সরকার, উপজেলা নির্বার্হী অফিসার মো. সোলেমান আলী, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মাহমুদ হোসেন মন্ডল, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হারুন-অর-রশিদ, পৌর মেয়র আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ বিভিন্ন দপ্তরের সরকারি কর্মকর্তা, রাজনৈতিক ব্যক্তিবগ, ইউপি চেয়ারম্যানগণ উপস্থি থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বই বিতরণ করেন। উপজেলার বেলকা মজিদ পাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ আবুল মুনছুর, বেলকা ইউপি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ , প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান আকন্দ উপস্থিত থেকে বই বিতরণ করেন। এছাড়া বাজার পাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, বেলকা এমসি উচ্চ বিদ্যালয়, বেলকা মনিকা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, জরমনদী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, পুটিমারি উচ্চ বিদ্যালয়, বেকাটারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নজরুল প্রি-ক্যাডেট স্কুল, হাজী দবির উদ্দিন কেজি স্কুলসহ উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উসৎব মুখর পরিবেশে বই বিতরণ করা হয়। নতুন বই হাতে পেয়ে খুশি শিক্ষার্থীরা।

মুজিব বর্ষ হবে রঙ্গিন বইয়ের মতো সমৃদ্ধ জীবন 

পাবনা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল বলেছেন – শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়নের দৃষ্ঠান্ত বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামুল্যে রঙ্গিন বই। ইংরেজী নব বর্ষের বড় উৎসব বই উৎসব যা আওয়ামী লীগ করেছে। বছরের প্রথম দিনে রঙ্গিন বই হাতে পাওয়ার পর একটি শিশু শিক্ষার্থীর মনে যে দোলা দেয় সেটা আমরা বলে বোঝাতে পারব না। শিশুরা রঙ্গিন বই পেয়ে নিজে সমৃদ্ধ হবে এবং নতুন উদ্যোমে দেশ গড়বে। শিক্ষা ক্ষেত্রের এই সাফল্যের মতোই সকল ক্ষেত্রে সফল হয়েছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। মুজিব বর্ষ হবে রঙ্গিন বইয়ের মতো সমৃদ্ধ জীবন।
বুধবার সকালে ইমাম গায্যালী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ এবং জিসিআই স্কুলে বই বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
বই উৎসবে উপস্থিত ছিলেন- ইমাম গায্যালী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কাশেম, অধ্যক্ষ সুরাইয়া সুলতানান ইমাম, সদস্য আলহাজ্ব সামসুর রহমান খান মানিক, পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক সরদার মিঠু আহমেদ প্রমূখ।

পাবনায় উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হল বই উৎসব

১ জানুয়ারি “শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ”-এই শে¬াগানে পাবনায় উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হল বই উৎসব। সকালে ঐতিহ্যবাহী পুলিশ লাইনস স্কুল এন্ড কলেজ ক্যাম্পাসে পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম বিপিএম পিপিএম অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন। এ সময় উপ¯ি’ত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার ( পুলিশ সুপার পদোনত্তিপ্রাপ্ত) ,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামীমা আক্তার, পুলিশ লাইনস স্কুল এন্ড কলেজ অধ্যক্ষ বাবুল আক্তার সহ পুলিশ লাইনস স্কুল এন্ড কলেজ এর শিক্ষক শিক্ষার্থী বৃন্দ ।

বগুড়ায় বিনামূল্যে বই বিতরণ

বুধবার পহেলা জানুয়ারী পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসব উপলক্ষে বগুড়ার গাবতলীতে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়। বগুড়া গাবতলী কাগইল নাযেব উল্ল্যা সিনিয়র আলিম মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতারণ করেন মাদ্রাসার সভাপতি আজমল হোসেন শীষ ও কাগইল হাইস্কুলের সাবেক সভাপতি ও আ’লীগ নেতা আব্দুর রশিদ মোল্লা। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওঃ আব্দুল মজিদের পরিচালনায় এ সময় উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্য শাহজাহান আলী, জাহাঙ্গীর আলম, শিক্ষক এরফান আলী, আইয়ুব আলী, তরিকুল ইসলাম, আতিকুল ইসলাম, আলমগীর হোসেন, প্রদীপ কুমার, মোহাম্মাদ আলী প্রমূখ। এছাড়াও কাগইলের সাহাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠ্যপুস্তক বিতরন করেন বিদ্যালয়ের সভাপতি মোছাঃ মনোয়ারা খাতুন ও প্রধান শিক্ষক পলী বালা সরকার।এসময় উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্য শাহজাহান আলী, শিক্ষক মাকছুদা খাতুন, শাহানাজ পারভীন, জাকিয়া ফারজানা ও মামনী আকতার প্রমূখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে